কোন প্রাণী চোখে দেখে না

650.00৳ 

সরাসরি কিনতে ফোন করুন: 01622913639

>> সারাদেশে ক্যাশ অন ডেলিভারি করা হয় !

>> ডেলিভারি খরচ ঢাকার মধ্যে ৬০ ঢাকার বাইরে  ১০০ টাকা !

>> প্রোডাক্ট হাতে পেয়ে চেক করে মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন !

>> ডেলিভারি খরচ সাশ্রয় করতে একসাথে কয়েকটি প্রোডাক্ট অর্ডার করুন

570 in stock

Description

 কোন প্রাণী চোখে দেখে না, প্রিয় পাঠক আজকের আর্টিকেলটিতে আমরা আলোচনা করব  কোন প্রাণী চোখে দেখে না  সে সম্পর্কে তাই আমাদের আর্টিকেলটি অবশ্যই শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়বেন  তাহলে চলুন জেনে নেয়া যাক ।

এই আর্টিকেলটিতে আমরা কিছু  প্রডাক্ট তুলে ধরেছি প্রোডাক্টের বিজ্ঞাপন পিকচার তুলে ধরেছে আপনি চাইলে প্রোডাক্টগুলো দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে অর্ডার করে সংগ্রহ করতে পারেন । Gazivai.com এ ফর্সা হওয়ার ক্রিম ও বডি লোশন কিনতে ক্লিক করুন – এক্ষুনি কিনুন

কোন প্রাণী চোখে দেখে না

প্যাঁচা এবং বাদুর এরা দিনে দেখতে পায় না। সবাই বলে, বাদুড় পুরোই দৃষ্টিহীন, শব্দতরঙ্গ অনুসরণ করেই তার সব ওড়াউড়ি। বাদুড়ের শ্রবণশক্তি প্রচণ্ড প্রখর, সত্যি। তবে এ কথাটা একদম ঠিক নয় যে বাদুড় চোখে দেখে না।Gazivai.com এ – মেয়েদের ব্রা ৫০ টাকা ব্রা প্যান্টি কিনতে ক্লিক করুন  – এখনই ব্রা কিনুন

পৃথিবীতে তালিকাভুক্ত স্তন্যপায়ী প্রাণী-প্রজাতির ২০ শতাংশ বাদুড়। বিজ্ঞানভিত্তিক সর্বশেষ তথ্য হচ্ছে—১১০০ প্রজাতির বাদুড়ের সবাই দেখতে পায় আর তা ভালোভাবেই; নিশাচর অনেক প্রাণীর মতো দৃষ্টিশক্তিটা তাদের ততো প্রখর না, এই যা। প্রধানত দুটি গোষ্ঠী বাদুড়ের—মেগাকিরোপেটরা ও মাইক্রোকিরোপেটরা। প্রথমটি আকারে মাঝারি থেকে বড়।

 চোখে দেখতে পায় না কোন প্রাণী

দৃষ্টিকেন্দ্র শক্তিশালী, চোখ বড়সড়। শিকারের সময় গন্ধ ও দৃষ্টিশক্তি দুটিই এরা ব্যবহার করে। ফ্লাইং ফক্স জাতের বাদুড়ের কথাই যদি ধরি, ওরা দিনের আলোয় শুধু ভালো দেখতেই পায় না, পৃথক পৃথক রঙেই সব দেখে। সত্যি বলতে, দিনের আলোই ওদের প্রধান প্রাণশক্তি।
স্তন্যপায়ী চোখের রেটিনায় দুই ধরনের আলোকগ্রাহী কোষ থাকে—দিনে ও রং দেখার জন্য কোণ, নৈশ দর্শনের জন্য রড। এই সেদিনতক ধারণা ছিল নিশাচর মাইক্রো বাদুড়ের শুধুই রড থাকে, কোণ নেই। সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা প্রমাণ করেছেন, নাজুক, ছোট্ট চোখ দিয়েও এই বাদুড় দিনে দেখতে পায়। অন্ধকার নামলেই শিকারে বেরোতে হবে।
তাই আলো-আঁধারির হিসাবটাও এদের ভালোই জানা। কাছাকাছি ওড়ার বেলায় নিজেদের শব্দের প্রতিধ্বনি শুনলেই চলে তাদের। এই চলার সময় শব্দ করে ওড়ে বাদুড়, যাতে সামনে কোনো বাধা থাকলে কতখানি দূরত্বে আছে, কোন দিকে যেতে হবে—এসব বোঝা যায়। গাঢ় অন্ধকারে চুলের মতো সরু পদার্থকেও বুঝতে পারে বাদুড়। আবার তা শনাক্ত করে এড়িয়েও চলতে জানে। দূরের পাড়িতে চোখ অবশ্যই ব্যবহার করা লাগে।

 

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “কোন প্রাণী চোখে দেখে না”

Your email address will not be published. Required fields are marked *