স্বামী কাকে বলে

500.00৳ 

সরাসরি কিনতে ফোন করুন: 01622913639

>> সারাদেশে ক্যাশ অন ডেলিভারি করা হয় !

>> ডেলিভারি খরচ ঢাকার মধ্যে ৬০ ঢাকার বাইরে  ১০০ টাকা !

>> প্রোডাক্ট হাতে পেয়ে চেক করে মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন !

>> ডেলিভারি খরচ সাশ্রয় করতে একসাথে কয়েকটি প্রোডাক্ট অর্ডার করুন

570 in stock

SKU: ( 47, ) মোটা হওয়ার ঔষধ Categories: , Tag:

Description

যেই ব্যক্তি সুখের আশায় নিজের স্বাধীনতার বিলীন ঘটায় তাকে স্বামী বলে। একজন স্বামী হলেন বৈবাহিক সম্পর্কের পুরষ। একজন স্বামীর স্ত্রী ও অন্যান্যের উপর অধিকার এবং বিধি নিষেধ এবং তার অবস্থান সমাজ, সংস্কৃতি এবং সময়ের পরিক্রমা অনুযায়ী বিভিন্ন হতে পারে।

একগামী ব্যবস্থায়, একটি বৈবাহিক জীবনে শুধুমাত্র একজন স্ত্রী এবং একজন স্বামী থাকবে। এটি আইন দ্বার জারি করা হয়েছে যা একাধিক পত্নী গ্রহণ থেকে পুরুষকে বিরত রাখে। বহুগামী ব্যবস্থায়, একজন পুরুষ একাধিক স্ত্রীর সাথে বৈবাহিক সর্ম্পকে জড়াতে পারেন। বিষমকামী বিবাহে, স্বামী সাধারণত পরিবারের প্রধান হয়ে থাকেন এবং তাকেই পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

কজন পুরুষ যদি আইনগতভাবে স্ত্রীর কাছ থেকে আলাদা হয়ে যায় বা তার স্ত্রী মারা যায় তখন সে পুরুষকে কয়েকটি নামে ডাকা হয়। যদি কোন স্ত্রী মারা যায় তাহলে ঐ পুরুষকে বিপত্নীক বলা হয় এবং কোন পুরষের যদি আইনসঙ্গত উপায়ে স্ত্রীর সাথে বিবাহবিচ্ছেদ ঘটে তাহলে সে পুরুষকে প্রাক্তন স্বামী বলা হয়। বর্তমান সমাজে স্বামীকে পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি হিসেবে বিবেচনা করা হয় না, বিশেষকরে যদি তার স্ত্রীর একাধিক পেশার সাথে জড়িত থাকে।

আমাদের আর্টিকেলটি পড়ার পাশাপাশি আমাদের আর্টিকেলে একটি প্রোডাক্ট পিকচার দেওয়া আছে আপনারা চাইলে এ প্রোডাক্টটি আমাদের থেকে সংগ্রহ করতে পারেন আমাদের এ প্রোডাক্টটির ব্যবহারের ফলে আপনি খুব তাড়াতাড়ি স্থায়ীভাবে মোটা হতে পারবেন তাই দেরি করে এখনই অর্ডার করে ফেলুন ।

 আপনি যদি এই প্রোডাক্ট  টি সংগ্রহ করতে চান তাহলে  আর্টিকেল  সকল নাম্বার গুলো রয়েছে সেগুলো তো ফোন করে  প্রোডাক্ট  সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জেনে অর্ডার করে দিতে পারেন আপনার প্রয়োজনীয় মেডিসিন আমাদের প্রতিনিধি খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে পৌঁছে যাবে আপনার ঠিকানায় ধন্যবাদ।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “স্বামী কাকে বলে”

Your email address will not be published. Required fields are marked *